শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০২:৩৩ অপরাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদ:
রামগঞ্জের করপাড়া ইউনিয়নে নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী এ.কে.এম তছলিম হোসেন || Lakshmipur Pratidin রামগঞ্জে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রেখেছেন আনোয়ার হোসেন খান এমপি || Lakshmipur Pratidin রামগঞ্জের কাঞ্চনপুরে নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী সৌদি বিল্লাল || Lakshmipur Pratidin পূনরায় চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে আলোচনায় আবুল হোসেন মিঠু || Lakshmipur Pratidin মানবতার কল্যাণে কাজ করাই আমাদের সবার মূল লক্ষ্য হওয়া উচিৎ …..ড. হাকীম মো. ইউছুফ হারুন ভূঁইয়া রামগঞ্জে নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী শামছুল ইসলাম সুমন || Lakshmipur Pratidin রামগঞ্জে গৃহবধূ ধর্ষনের দায়ে পল্লী চিকিৎসক আটক || Lakshmipur Pratidin রামগঞ্জে পূনরায় চেয়ারম্যান পদ প্রার্থী হিসেবে আলোচনায় হাজী মোহাম্মদ হোসেন রানা || Lakshmipur Pratidin রামগঞ্জের করপাড়া ইউনিয়নে নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী মাঈনউদ্দিন মানিক || Lakshmipur Pratidin রামগঞ্জের চন্ডিপুরে চেয়ারম্যান পদে নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী বুলবুল পাইন || Lakshmipur Pratidin

করোনা যুদ্ধে জয়ী হয়ে বাড়ি ফিরলেন বৃদ্ধ

লক্ষ্মীপুর সংবাদদাতা  : করোনা যুদ্ধে জয়ী হয়ে বাড়ী ফিরলেন লক্ষ্মীপুরের রামগতি উপজেলার ইউনুস মাঝি (৫২)। তিনি জেলার দ্বিতীয় করোনা আক্রান্ত রোগী ছিলেন। করোনায় আক্রান্ত ইউনুস মাঝি নারায়ণগঞ্জ থেকে তাবলিগ শেষে রামগতি পৌরসভার সবুজগ্রাম এলাকার বাড়িতে এসেছিলেন। তারপর এই বৃদ্ধার নমুনা পরীক্ষা করা হলে পজেটিভ আসলে তাকে ঢাকার কুয়েত মৈত্রী হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়।

বৃহস্পতিবার (৩০ এপ্রিল) বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রামগতি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ আবদুল মোমিন ।

ইউএনও আবদুল মোমিন বলেন, নারায়ণগঞ্জ থেকে আসার পর ইউনুস মাঝির করোনা উপসর্গ দেখা দেয়। খবর পেয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ তার নমুনা সংগ্রহ করে করে চট্টগ্রাম বিআইটিআইডিতে পাঠায় ৷ ১২ এপ্রিল নমুনা পরীক্ষায় তার করোনা পজিটিভ আসে। পরে তাকে উদ্ধার করে ঢাকার কুয়েত বাংলাদেশ মৈত্রী সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়। অবশেষে সুস্থ হয়ে ১৭ দিন পর বাড়ি ফিরেছেন তিনি। করোনাযুদ্ধে জয়ী ইউনুস মাঝি রামগতি পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ডের সবুজগ্রাম এলাকার বাসিন্দা।

এদিকে লক্ষ্মীপুর সদর, রামগঞ্জ, রামগতি ও কমলনগরে এ পর্যন্ত ৪৩ জন রোগী করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে রামগতির উপজেলার ইউনুস মাঝি ঢাকা থেকে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। আরও একজন রোগী ঢাকার কুয়েত বাংলাদেশ মৈত্রী সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। বাকি ৪০ জনকে সদর হাসপাতাল ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সর আইসোলেশন ওয়ার্ডে রেখে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। এর মধ্যে একজন মৃতবরন করলে তার নমুনা পরিক্ষার পর করোনা পজেটিভ আসে। এই নিয়ে বর্তমানে জেলায় করোনা রোগীর সংখ্যা ৪১।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মূল্যবান মতামত লিখুন


© All rights reserved © 2020 Lakshmipurpratidin.com
Design & Developed BY N Host BD