সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:২৬ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদ:
রামগঞ্জের চন্ডিপুরে নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী বীর মুক্তিযোদ্ধা লিয়াকত আলী পাইন || Lakshmipur Pratidin.com রামগঞ্জে ক্যান্সারে আক্রান্ত ছাত্রদল নেতার পাশে শাহাদাত হোসেন সেলিম || Lakshmipur Pratidin রামগঞ্জের করপাড়া ইউনিয়নে জনগনের মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী ছলিম উল্লাহ || Lakshmipur Pratidin রামগঞ্জের ভাটরা ইউনিয়নে নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী এড. মোঃ আমিনুল ইসলাম সুমন || Lakshmipur Pratidin রামগঞ্জে করপাড়া ইউনিয়নের জনগণের মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী সাংবাদিক ছলিম উল্লাহ || Lakshmipur Pratidin রামগঞ্জের করপাড়া ইউনিয়নে নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী এ.কে.এম তছলিম হোসেন || Lakshmipur Pratidin রামগঞ্জে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রেখেছেন আনোয়ার হোসেন খান এমপি || Lakshmipur Pratidin রামগঞ্জের কাঞ্চনপুরে নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী সৌদি বিল্লাল || Lakshmipur Pratidin পূনরায় চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে আলোচনায় আবুল হোসেন মিঠু || Lakshmipur Pratidin মানবতার কল্যাণে কাজ করাই আমাদের সবার মূল লক্ষ্য হওয়া উচিৎ …..ড. হাকীম মো. ইউছুফ হারুন ভূঁইয়া

কমলনগরে স্বাস্থ্যকর্মীর বাসায় অবৈধ হাসপাতাল

আলমগীর হোসেনঃ  লক্ষ্মীপুরের কমলনগর উপজেলায় পরিবার পরিকল্পনার স্বাস্থ্য কর্মী বিলকিস বেগমের বিরুদ্ধে বাসাকে হাসপাতাল বানিয়ে প্রসূতি মায়েদের ডেলিভারী ও সর্বরোগের চিকিৎসা চালানোর অভিযোগ উঠেছে।

আইনকে তোয়াক্কা না করে জন্ম নিয়ন্ত্রণ ইনজেকশান ও অন্যান্য পদ্ধতিও দিচ্ছেন তিনি। চিকিৎসা বিজ্ঞানে কোন ডিগ্রী না থাকলেও গাইনী ও প্রসূতি রোগী দেখছেন ও চিকিৎসা দিচ্ছেন হরহামেশায়।

সরেজমিনে দেখা যায়, জেলার কমলনগর উপজেলার চরলরেঞ্চ ইউনিয়নের লরেঞ্চ দক্ষিন বাজারের আউয়াল মেম্বারের বাড়িতে নিজ বাসায় ৩টি রুমকে হাসপাতাল বানিয়ে নিয়মিত রোগীদের চিকিৎসা দিচ্ছেন একই ইউনিয়নে দায়িত্বপ্রাপ্ত পরিবার কল্যাণ সহকারী বিলকিস বেগম । এতে প্রতারিত হচ্ছে সাধারণ মানুষ। ওয়ার্ড পর্যায়ে গর্ভবতী মায়েদের তালিকা করা, নিয়মিত চেকআপ নিশ্চিত করা ও হাসপাতালে নিরাপদ ডেলিভারী করতে সহায়তা করা ও টিকা নিশ্চিত করাই যার কাজ অথচ কোন ডিগ্রী না থাকলেও তিনি প্রতিদিন চেম্বার করছেন। নিজের হাসপাতালে তিনি নিজেই করছেন ডেলিভারী। এছাড়াও স্ত্রী রোগ, কিশোরী, প্রসূতি ও মহিলাদের বিভিন্ন গাইনী রোগের চিকিৎসা করছেন। জন্ম নিয়ন্ত্রন ইনজেকশান ও বিভিন্ন প্রদ্ধতি দিয়ে হাজার হাজার টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

জানা যায়, সরকারী ভাবে ইউনিয়ন ও উপজেলা পর্যায়ে হাসপাতালগুলোতে বিনামূল্যে প্রসূতি মায়েদের ডেভিভারীসহ সকল রোগের চিকিৎসার জন্য আধুনিক ব্যবস্থা রয়েছে। পরিবার কল্যাণ সহকারী হওয়ার সুবাধে বিলকিস গ্রামের প্রসূতিদের তালিকা প্রণয়ন করে থাকেন।

ঠিক তখনই কেউ ডেলিভারীর জন্য আসলে সরকারি হাসপাতালে না পাঠিয়ে নিজের চেম্বারে ডেলিভারী করে হাজার হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়। এছাড়াও হাসপাতালের পাশেই নিজের নামেই দিয়েছেন ফার্মেসী। অধিকমূল্যে ওষুধ বিক্রি করেও করছেন প্রতারণা। ডিগ্রী না থাকার পরেও অবৈধভাবে বাসাকে হাসপাতাল বানিয়ে ডেলিভারী ও রোগী দেখছেন মর্মে জানতে চাইলে বিলকিস বেগম চেঁছিয়ে বলেন, পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের ডিজি তাকে ট্রেনিং দিয়েছেন। ডিজির অনুমতিতেই তিনি এই হাসপাতাল বানিয়েছেন এবং সেবা দিচ্ছেন। হাসপাতালের অনুমোদন আছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন তার ড্রাগ লাইসেন্স আছে।

জানা যায়, লক্ষ্মীপুর-কমলনগর মহাসড়কের পাশেই ডা: বিলকিস বেগম লেখা বিশাল সাইনবোর্ড ইতোমধ্যে জেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ের উপ-পরিচালকের নির্দেশে সরাতে বাধ্য হন তিনি। এছাড়াও বাসায় অবৈধ হাসপাতাল কার্যক্রম বন্ধ করতে তাকে নির্দেশ দেওয়া হয়। কিন্তু নির্দেশনাকে বৃদ্ধাঙ্গলি দেখিয়ে শুধু নামের আগে ডাক্তার লেখা মুছে সকল কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছেন। বাসায় রুম ব্যবহার করে হাসপাতালের কার্যক্রম চালাতে পারেন কিনা জানতে কমলনগর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা আবু তাহের জানায় সরজমিনে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক ডা: আশফাকুর রহমান মামুন বলেন, কোনভাবেই তিনি বাসায় প্রসূতি সেবা বা কোন চেম্বারে সেবা দিতে পারবেননা। তার কাজ হলো মাঠে প্রসূতিদের সরকারি সেবা নিশ্চিত করা। কারো ডেলিভারীর প্রয়োজন হলে তাকে নিয়ে নিকটস্থ সরকারি হাসপাতালে প্রেরণ করা। তাকে এর আগেও সতর্ক করা হয়েছে। এ বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মূল্যবান মতামত লিখুন


© All rights reserved © 2020 Lakshmipurpratidin.com
Design & Developed BY N Host BD